বাংলা সংবাদ (জরুরী)

খালেদা, জাপা মহাসচিব, গোলাম মাওলা রনি, কা‌দের সি‌দ্দিকী ও ইমরান এইচ সরকারের মনোনয়নপত্র বাতিল

বিএনপির চেয়ারপারসন খালেদা জিয়ার তিন আসনের মনোনয়নপত্রই বাতিল করা হয়েছে। দুই মামলায় দণ্ডপ্রাপ্ত হয়ে কারাবন্দী খালেদা জিয়া ফেনী-১ (পরশুরাম-ছাগলনাইয়া-ফুলগাজী), বগুড়া-৬ (সদর) ও বগুড়া-৭ (গাবতলী-শাহজাহানপুর) আসনে নির্বাচন করতে চেয়েছিলেন। এর মধ্যে বগুড়া-৭ আসনে বিএনপির বিকল্প প্রার্থীর মনোনয়নপত্রও বাতিল করা হয়েছে। তবে ফেনী-১ ও বগুড়া-৬ আসনে বিকল্প প্রার্থীরা ভোটে থাকছেন।

পটুয়াখালীত-১ আসনে জাতীয় পার্টির মহাসচিব এবিএম রুহুল আমিন হাওলাদারের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা।

বিএনপিতে যোগ দিয়েই মনোনয়ন পেয়েছিলেন আওয়ামী লীগের সাবেক সংসদ সদস্য (এমপি) গোলাম মাওলা রনি। হলফনামায় স্বাক্ষর না থাকায় রনির মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে।

২ ডিসেম্বর, রবিবার মনোনয়নপত্র যাচাইয়ের পর পটুয়াখালী জেলায় রনিসহ মোট ৯ জনের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছেন জেলা রিটার্নিং কর্মকর্তা।

ঋণখেলাপের ঘটনায় টাঙ্গাইল ৪ ও ৮ আসনে কৃষক শ্রমিক জনতা লীগের সভাপতি বঙ্গবীর আবদুল কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র বাতিল করা হয়েছে। এর প্রতিক্রিয়ায় তিনি বলেছেন, তার বোন ক্ষমতায় থাকা পর্যন্ত তাকে নির্বাচন করতে দেওয়া হবে না।

২ ডিসেম্বর, রবিবার দুপুরে যাচাই-বাছাই শেষে টাঙ্গাইল জেলা রিটার্নিং অফিসার ও জেলা প্রশাসক মো. শহিদুল ইসলাম কাদের সিদ্দিকীর মনোনয়নপত্র বাতিল করেন।

পরে সাংবাদিকদের সঙ্গে আলাপকালে কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘আমি ইলেকশন কমিশনে আপিল করব। আমরা যখন ইলেকশন কমিশনে গিয়েছিলাম, তখন তারা বলেছিল, ইলেকশন কমিশন কখনো কোর্টে বাদী হবে না। আমি এটি দেখার জন্যই ইলেকশন কমিশনে যাব।’

বোন হিসেবে কারো নাম উল্লেখ না করে কাদের সিদ্দিকী বলেন, ‘যতক্ষণ পর্যন্ত আমার বোন সরকারে থাকবেন, ততক্ষণ পর্যন্ত আমাকে মনে হয় ইলেকশন করতে দেওয়া হবে না। আমি চাই নির্বাচনটা ভালো হোক।

আমার সংগ্রাম হচ্ছে ভোটার যেন ভোট দিতে পারে। দেশে যেন গণতন্ত্র অব্যাহত থাকে, দেশে যেন সুশাসন থাকে। এখন যে কুশাসন চলছে এই শাসন ভালো না। আমার নির্বাচনে দাঁড়ানো আর না দাঁড়ানো কোনো বড় কথা না।’

কুড়িগ্রাম-৪ আসন থেকে লড়াই করতে চাওয়া গণজাগরণ মঞ্চের মুখপাত্র ইমরান এইচ সরকারের মনোনয়নপত্র বাতিল করেছে নির্বাচন কমিশন (ইসি)। একইসঙ্গে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী মো. জাকির হোসেনের মনোনয়নপত্রও বাতিল করা হয়েছে।

রিটানিং কর্মকর্তা বলেন, মনোনয়নপত্র বাতিল হওয়া প্রার্থীরা আগামী তিন দিনের মধ্যে নির্বাচন কমিশনে আপিল করতে পারবেন।

 

মতামত যোগ করুন

মতামত দিতে ক্লিক করুন

error: দুঃখিত, অনুলিপি করা যাবে না ! পরে এই কন্টেন্ট প্রয়োজন হলে আপনার সামাজিক অ্যাকাউন্টের সাথে ভাগ করুন।