নিবন্ধ

দাড়ি গজানোর উপায় (ঘরোয়া পদ্ধতিতে)

দাড়ি গজানোর উপায়, দাড়ি রাখার উপকারিতা

মুখে দ্রুত ঘন দাড়ি গজানোর উপায় সমূহ নিয়ে এখানে আলোচনা করা হয়েছে । দাড়ি হলো পুরুষত্বের প্রতিক । দাড়ি পুরুষের পুরুষত্বকে আরো বেশি করে ফুটিয়ে তোলে । মুখে দাড়ি না থাকলে অনেক পুরুষকেই দেখতে বাচ্চ বাচ্চা লাগে | তাই বেশিরভাগ পুরুষের মাঝেই দাড়ি রাখার আগ্রহ কাজ করে । তবে দুখ:জনক হলেও সত্য যে খাবার- দাবারের অনিয়ম, ভিটামিনের অভাব, হরমোনের প্রভাব সহ বিভিন্ন কারনে অনেকের দাড়ি দেরিতে উঠে বা কম দাড়ি উঠে যা মনে অসস্তির জন্ম দেয় । তবে কিছু কিছু পদ্ধতি প্রয়োগ করে এই সমস্যার সমাধান করা যেতে পারে । চলুন দেখে নেই ঘরোয় পদ্ধতিতে দ্রুত ঘন দাড়ি গজানোর কিছু সহজ উপায় ।

সহজে দ্রুত ঘন দাড়ি গজানোর উপায় –

সহজে ঘন দাড়ি গজানোর কয়েকটি ঘরোয়া উপায় এখানে তুলে ধরা হলো।

দাড়ি গজাতে পেঁয়াজ :

দাড়ি গজাতে পেঁয়াজ খুবই ভালো কাজে দেয় । আর ঘরোয়া পদ্ধতিতে দাড়ি গজাতে পেঁয়াজ ব্যবহারের পদ্ধতিটি খুবই সহজ । পেয়াজের রস ও নারিকেল তেল দাড়ি এবং চুল গজাতে সহায়তা করে । প্রথমে পেয়াজ ছেচে এক চা চামচ পেয়াজের রস বের করে নিবেন । তারপর হালকা গরম পানি দিয়ে মুখ ভালোভাবে পরিষ্কার করে ধুয়ে নিবেন । এরপর ১ চামচ পেয়াজের রসের সাথে আধা চামচ নারিকেল তেল মিশিয়ে উক্ত মিশ্রনটি মুখে দাড়ি উঠার স্থানে আলতো ভাবে মালিশ করে মেখে নিন । মিশ্রনটি আধা ঘন্টার মতো রাখুন যাতে তা ত্বকে প্রবেশ করতে পারে । এরপর মুখ ধুয়ে ফেলুন । এভাবে নিয়মিত কয়েকমাস ব্যবহার করুন । এতে উপকার পেতে পারেন । যাদের অতিরিক্ত চুল পরে তারাও চাইলে এই মিশ্রনটি মাথায় ব্যবহার করতে পারেন । এটি চুল পরা রোধ করতে এবং নতুন চুল গজাতে সাহায্য করবে ।

নারিকেল তেল ও কারিপাতা:

নারিকেল তেল এবং কারিপাতাও দাড়ি গোফ বা চুল গজাতে সহায়তা করে । এর ব্যবহার প্রনালীও পেয়াজের রস ও নারিকেল তেলের মতো । কারিপাতা গুড়ো করে বা ব্লেন্ডারে ব্লেন্ড করে পেস্ট তৈরি করুন । তারপর এক চা চামচ কারিপাতার সাথে আধা চা চামচ নারিকেল তেল মিশিয়ে দাড়ি উঠার স্থানে মিশ্রনটি লাগান । আধা ঘন্টা পর মিশ্রনটি ধুয়ে ফেলুন । এভাবে কয়েক মাস নিয়মিত ব্যবহার করুন । আশা করা যায় উপকার পাবেন ।

মুখমন্ডল পরিষ্কার রাখুন:

মুখমন্ডল সব সময় পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখুন । মুখমন্ডল পরিষ্কার পরিচ্ছন্ন থাকলে লোমকূপগুলো স্বাভাবিকভাবে কাজ করতে পারে ও রক্ত চলাচল বৃদ্ধি পায় । ফলে তা দ্রুত ঘন দাড়ি গজাতে সহায়তা করে । মুখের পরিচ্ছন্নতা শুধু দাড়ি গজানোর জন্য নয় বরং সব দিক থেকেই এটি ত্বকের জন্য উপকারি ।

সহায়ক খাবার:

ডিম, কমলা, আলু, ব্রাজিলিয়ান বাদাম, গরুর মাংস সহ বেশ কিছু খাবার রয়েছে যা চুল এবং দাড়ি গজাতে খুবই সহায়ক ভূমিকা পালন করে । তাই এসব খাবার গুলো নিয়মিত খেতে হবে।

বার বার সেভ না করা:

আমরা অনেকে মনে করি বার বার সেভ করলে বুঝি দ্রুত দাড়ি উঠবে । তবে এটি একটি ভুল ধারনা । এমন করা হলে দাড়ি উঠার জন্য ছোট ছোট পশমগুলো মাথা তুলে দাড়ানোর সুযোগই পায়না । ছোট ছোট এই পশমগুলোকে কিছুটা বড় হওয়ার সুযোগ দিতে হবে । তাই খুব ঘন ঘন সেভ না করে ৩/৪ সপ্তাহ পর পর সেভ করুন ।

দাড়ি বড় হওয়ার জন্য সময় দিন:

এই টিপসটিও আগের টিপসটির মতোই । দাড়ির ছোট ছোট লোমগুলোকে বড় হওয়ার সুযোগ দিন ।

আশা করি উপরে দেয়া দ্রুত ঘন দাড়ি গজানোর উপায় গুলো মেনে চলার চেষ্টা করলে তা মুখে দ্রুত ঘন দাড়ি গজাতে সহায়তা করবে । বর্তমানে দ্রুত দাড়ি গজানোর জন্য বাজারে বিভিন্ন রকমের তেল বা লোশন পাওয়া যায় । এগুলো অনেক সময় কাজে দেয় আবার অনেক সময় কাজে দেয়না । কখনো কখনো এগুলোর প্বার্শপতিক্রিয়াও দেখা যায় । তাই যদি কোন ধরনের তেল বা লোশন ব্যবহার করতে চান তাহলে বুঝে শুনে ভালো কোম্পানীর তেল/লোশন ব্যবহার করবেন । অন্যথায় সমস্যা হতে পারে । নিয়মিত আমাদের ওয়েবসাইটে আসার আমন্ত্রন রইলো । ধন্যবাদ ।

মতামত যোগ করুন

মতামত দিতে ক্লিক করুন

error: দুঃখিত, অনুলিপি করা যাবে না ! পরে এই কন্টেন্ট প্রয়োজন হলে আপনার সামাজিক অ্যাকাউন্টের সাথে ভাগ করুন।