নিবন্ধ

পড়তে বসলেই ঘুম আসে ? সমাধান-

পড়তে বসলেই ১০ মিনিটের মধ্যে ঘুম আসে ? কেন? সমাধান:

১* উজ্জ্বল আলোয় পড়তে বসুন । দিনের বেলা যথেষ্ট প্রাকৃতিক আলোর জন্য জানালা এবং দরজা খোলা রাখুন। রাতের বেলা টেবিল ল্যাম্প ইউজ করতে পারেন। কম আলোয় কখনো পড়বেন না।

২* কোনো কিছুতে বেশিক্ষন একটানা মনযোগ ধরে রাখা কঠিন । সেটা বিরক্তিকর হলে আরও কঠিন। ৪০-৪৫ মিনিট পড়ার পর ৫ মিনিটের বিরতি দিন। দিনের বেলা হলে বারান্দায় আলো বাতাস খেয়ে আসুন। রাতের বেলা হাত এবং মাথা ঘুরিয়ে নাড়ুন। এবং বেশি বেশি পানি পান করুন।

৩* অবশ্যই বিছানায় পড়তে বসবেন না। পুরো শরীর রেস্টে চলে গেলে বাকি আর চোখেরও রেস্ট নিতে ইচ্ছে করবে। এজন্য চেয়ার টেবিলে বসে পড়ুন। (অনেকে বিছানায় পড়তে সাছন্দ্য পান। তাদের ক্ষেত্রে যেই জায়গায় তারা উপযোগী সেইখানে পড়া উচিত কিন্তু চেয়ার টেবিল বেষ্ট এতে আপনার পড়ার প্রতি তীব্র ইচ্ছা ও আগ্রহ বাড়বে)

৪* শব্দ করে পড়লে ঘুম আসার সম্ভাবনা একবারেই কমে যাবে। মনে মনে পড়তে গেলে ঘুম বেশি আসে। (কিন্তু শব্দ করে পড়লে আপনি মিনিট এ ১৫০ টির মত শব্দ উচ্চারণ করতে পারবেন কিন্তু নিশ্চুপ ভাবে পড়লে ২৫০+ তাই রিভিশানের ক্ষেত্রে চুপ করে পরাই বেটার)

৫* সারাদিন ঘরে বসে থাকবেন না । মাঝে মাঝে বাইরে বের হোন প্রাকৃতিক আলো বাতাসে।

৬* পড়া শুরু করার আগে নিয়মিত চা কফি খান। প্রয়োজনে অপ্রোয়োজনে বেশি চা কফি খেলে ইফেক্ট কমে যেতে পারে।

৭* মোটিভেশন অনেক দরকার । আপনি কেন পড়বেন বা পড়ছেন , সেটা মাথায় এনে প্রচণ্ড উৎসাহ ও উদ্দীপনা নিয়ে পড়ুন।

৮* স্টিকি নোট/পেন্সিল/কলম দিয়ে দাগিয়ে দাগিয়ে পড়ার চেষ্টা করুন এতে আপনার ইন্দ্রিয় সক্রিয় থাকবে ও পেশীগুলাও সতেজ থাকবে! .

***সর্বশেষ , পড়াশোনা মানসিক সাধনার ব্যাপার। ভোগের জিনিষ থেকে নিজেকে দূরে রেখে চেয়ার টেবিলে বই নিয়ে বসে থাকা সহজ ব্যাপার নয়। এত সহজ এবং আনন্দদায়ক হলে সবাই ভাল রেজাল্ট করতো। সেক্ষেত্রে এর কোনো বিষেশত্ব থাকতো না। নিজেকে নিয়ন্ত্রণ করে পড়বেন , আপনি সফল হবেন। না পারলে কোনো উপদেশই আপনার জন্য কাজে আসবে না।

ট্যাগ গুলো
error: দুঃখিত, অনুলিপি করা যাবে না ! পরে এই কন্টেন্ট প্রয়োজন হলে আপনার সামাজিক অ্যাকাউন্টের সাথে ভাগ করুন।