নিবন্ধ

বাংলাদেশের চাদেঁ রকেট পাঠানোর প্রকল্প গ্রহন (রম্য)

আমরা অন্যকে নিয়ে হাসাহাসি করছি কিন্তু বাংলাদেশ যদি কখনো চাদেঁ রকেট পাঠানোর সিদ্ধান্ত নেয় তাহলে সেই প্রকল্প কিভাবে বাস্তবায়ন হতে পারে চলুন তা দেখে নেই।

১ম ধাপ: (১ম ধাপে আমদের দেশের প্রধানমন্ত্রী এই বিষয়ে স্বপ্ন দেখবেন। তারপর একদিন এক আলোচনা সভায় তিনি বলবেন:) আমরাও একদিন চাদেঁ রকেট পাঠাবো!

২য় ধাপ: (পরবর্তি ১০ বছর মন্ত্রী এমপিরা প্রধানমন্ত্রীর সেই স্বপ্নের কথা বলে বলে মানুষের কানের পোকা মেরে দিবেন)। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে আমরা চাদে রকেট পাঠাবোই । কোন দেশবিরোধি শক্তি আমাদের রকেট আটকাতে পারবেনা ।

৩ ধাপ: ( তারপর একদিন মন্ত্রীসভার বৈঠকে প্রকল্প গ্রহন করা হবে। বৈঠক শেষে প্রেস ব্রিফিংয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব জানাবেন:) আগামি ১ বছরের মধ্যে আমাদের রকেট চাদে পৌছাবে!

৪র্থ ধাপ: (দেশের ফেসবুক বুদ্ধিজিবী, আম জনতা ও বিরোধিদল এ নিয়ে বিতর্কে জড়িয়ে পরবে)

  1. বুদ্ধিজিবী- জানতে পেরেছি সরকার বর্ষাকালে রকেট উৎক্ষেপনের সিদ্ধান্ত নিয়েছে। তবে এই সিদ্ধান্ত খুবই ঝুকিপূর্ন। কারন বর্ষাকালে রকেট উৎক্ষেপন করতে গেলে যেকোন সময় বৃষ্টি এসে রকেটের আগুন নিভে যেতে পারে। বিষয়টি নিয়ে সরকারের আরো ভাবা উচিত ছিলো।
  2. আম জনতা- রাস্তার যে দূরবস্থা তাতে রাস্তায় সামান্য স্পিডে অটো চলতে পারেনা আর সরকার মহাকাশে রকেট চালাতে চায় !!! কি দরকার এসবের? দেশে বহু বেকার যুবক আছে। এই টাকা দিয়ে তাদের অটো কিনে দেয়া হোক!
  3. বিরোধি দল- এই সরকার অবৈধ ভাবে রকেট চালাতে চায়। রাতের আধারে কোন রকেট চালানো হলে তা জনগন মেনে নিবেনা !!!
    ৫ম ধাপ: (মন্ত্রিসভার বৈঠকের ৩ বছর পর রকেট তৈরি ও অন্যান্য কাজের জন্য বাজেট পাশ হবে)।
  4. রকেট তৈরি- ৭২৬৩৮৪৬১৯৩৭৪৬৩৬৩৮৬৫২৭ হাজার কোটি টাকা।
  5. রকেটের তেল ক্রয়- প্রতি লিটার ৯৪৬২৬৪৪৮৫ কোটি টাকা।
  6. রকেট রং করার জন্য বিশেষ রং ক্রয়- ৬৭২৭৩৬৬২৬৭ কোটি টাকা।
  7. প্রকল্পের ইন্জিনিয়ারদের থাকার জন্য আবাসন প্রকল্প নির্মান- ৯৩৭৩৬৪৭২৮৩৬ কোটি টাকা।
  8. নভোচারিদের জন্য বিশেষ সেন্টু গেন্জি ক্রয়- প্রতি পিছ ৫২৫৭৭৩৪ লক্ষ টাকা।
  9. নভোচারিদের সানগ্লাস, হ্যান্ডগ্লাভস সহ আনুসাংগিক পোষাক তৈরি- ৯৮২৭৫৭৬৭৮৯ কোটি টাকা।
  10. রকেট ঢেকে রাখার জন্য পর্দা তৈরি- ১৭৫২৪ কোটি টাকা।
  11. রকেট চালানো শিখতে মন্ত্রনালয়ের কর্মকর্তাদের বিদেশ গমন- ৪৫৯৩৮ কোটি টাকা।
  12. রকেট চালানো শিখতে বই ক্রয়- “১ সপ্তাহে রকেট চালানো শিখুন” লেখক: মোশাররফ পাটোয়ারি, মূল্য ৮৫ লাখ টাকা।
  13. দুর থেকে রকেট দেখার জন্য দূরবীন ক্রয়- ৯৮৫৬ কোটি টাকা।
  14. রকেটের ধূলাবালি মোছার জন্য তোয়ালে ও টিস্যু ক্রয়- ৮৬৩ কোটি টাকা।
  15. আনুসাংগিক অন্যান্য জিনিসপত্র ক্রয়- ৬৭৪৮৯ কোটি টাকা

৬ষ্ঠ ধাপ: প্রধানমন্ত্রিকে মহাকাশ কন্যা উপাধি প্রদান ও উপজেলা পর্যায়ে আনন্দ শোভাযাত্রা পালন।

৭ম ধাপ: রকেটে টাইটেনিয়ামের পরিবর্তে গরু মার্কা ঢেউটিন ব্যবহারের খবর ফাস!

৮ম ধাপ: রকেটের অনিয়ম তদন্তে কৃষি মন্ত্রনালয়ের উপ সচিবকে প্রধান করে ৬ সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন।

৯ম ধাপ: অনিয়মের অভিযোগে রকেটের রং মিস্ত্রিকে ঢাকা থেকে নারায়নগন্জে বদলি!

১০ম ধাপ: রকেট উৎক্ষেপনের দিন নিধার্রন ও সারাদেশে মাইকিং।

১১তম ধাপ: রকেটের পাছার দিকে তাকালে তীব্র আগুনের ঝলসানিতে চোখ ধাধিয়ে যেতে পারে বলে গুজব প্রচার!

১২তম ধাপ: রকেট উৎক্ষেপনের আগেই রকেটের পাছার দিকে তাকিয়ে ২ দর্শনার্থীর চোখ অন্ধ হওয়ার অভিযোগ!

১৩তম ধাপ: গুজব ছড়ানোর অভিযোগে বিরোধি দলের ১২ নেতা-কর্মী আটক।

১৪তম ধাপ: গুজব প্রতিরোধে কমিটি গঠন ও সারাদেশে মসজিদে মসজিদে সচেতনতা মূলক মাইকিং।

১৫তম ধাপ: অপয়া রকেট উৎক্ষেপন ঠেকাতে বিরোধি দলীয় জোটের দেশব্যাপি হরতাল ঘোষনা!

১৫তম ধাপ: রকেট যেন সহি সালামতে চাদে পৌছাতে পারে তাই দেশবাসির কাছে দোয়া কামনা।

১৬তম ধাপ: নির্ধারিত সময়ের চেয়ে ২ ঘন্টা ৩৬ মিনিট পর রকেট উৎক্ষেপন।

১৭তম ধাপ: ১০ মিনিট হয়ে যাওয়ার পরও রকেট কেন এখনও চাদে পৌছালোনা সেই টেনশনে স্ট্রোক করে ২জন নিহত, গুরুতর অসুস্থ ৫ জন ঢাকা মেডিকেলে ভর্তি।

১৮তম ধাপ: পরেরদিন সকালে রকেটের সফলভাবে চাদে অবতরন!

১৯তম ধাপ: জাতীর উদ্দশ্যে প্রধানমন্ত্রীর ভাষন। পৃথীবির প্রথম দেশ হিসেবে বাংলাদেশের চাদে যাওয়ার দাবি!

ট্যাগ গুলো

মতামত যোগ করুন

মতামত দিতে ক্লিক করুন

error: দুঃখিত, অনুলিপি করা যাবে না ! পরে এই কন্টেন্ট প্রয়োজন হলে আপনার সামাজিক অ্যাকাউন্টের সাথে ভাগ করুন।