বাংলা সংবাদ (জরুরী)

মন্ত্রণালয়ে শেষ দিনটা যেমন ছিল নুরুল ইসলাম নাহিদ, শাজাহান খান ও তোফায়েল আহমেদের

বর্তমান মন্ত্রিসভার বাদ পড়া সদস্যরা নিজ নিজ মন্ত্রণালয় থেকে বিদায় নিয়েছেন। যাওয়ার আগে তাঁরা নতুন মন্ত্রিসভা কেমন হলো তা নিয়ে যেমন বলেছেন, তেমনি নিজেদের কর্মকাণ্ড নিয়েও কথা বলেছেন।

আজ সোমবার তেমন কোনো কাজ হয়নি কোনো মন্ত্রণালয়েই। বিদায়ের আবহ ছিল সব জায়গাতে। মন্ত্রণালয়গুলোতে নতুন মন্ত্রীদের নিয়ে আলোচনা ছিল ।

বিদায়ী বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, নতুনদের জায়গা দিতে হয়। যে নতুন মন্ত্রিসভা গঠিত হয়েছে তা ভালো হয়েছে। তোফায়েল বলেন, মন্ত্রিপরিষদে না থাকলেও সংসদে আছেন। সুতরাং তিনি কাজেই আছেন। এ সময় তিনি নিজ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তাদের কাছে থেকে আনুষ্ঠানিকভাবে বিদায় নেন।

বেলা সাড়ে ১১টার দিকে বিদায়ী শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের বিদায় অনুষ্ঠান হয় মন্ত্রণালয়ে। এ সময় তিনি গত ১০ বছরে শিক্ষা ক্ষেত্রে বিভিন্ন সফলতার চিত্র তুলে ধরেন। নাহিদ বলেন, এখন শিক্ষার বড় চ্যালেঞ্জ হচ্ছে গুণগত মান।

দুপুরে বিদায় অনুষ্ঠান করেন, নৌপরিবহনমন্ত্রী শাজাহান খান। তিনি বলেন, নতুন যাঁরা অন্তর্ভুক্ত হয়েছেন তাঁরা ভালো করবেন।

বিদায় অনুষ্ঠান করেন, গৃহায়ণ ও গণপূর্তমন্ত্রী মোশাররফ হোসেন, সমাজকল্যাণমন্ত্রী রাশেদ খান মেনন, খাদ্যমন্ত্রী কামরুল ইসলাম প্রমুখ।

প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বে গতকাল রোববার নতুন মন্ত্রিসভার ৪৭ সদস্যের নাম ঘোষণা করা হয়েছে । এই মন্ত্রিসভায় নতুন মুখ ৩১। পুরোনোদের মধ্যে ৩৬ জন বাদ পড়েছে।

নিয়ম অনুযায়ী, নতুন মন্ত্রিসভার শপথের সঙ্গে সঙ্গে বর্তমান মন্ত্রিসভা ভেঙে যাবে।

মতামত যোগ করুন

মতামত দিতে ক্লিক করুন

error: দুঃখিত, অনুলিপি করা যাবে না ! পরে এই কন্টেন্ট প্রয়োজন হলে আপনার সামাজিক অ্যাকাউন্টের সাথে ভাগ করুন।