বাংলা সংবাদ

মিন্নি মহারাজ সাপ: নয়নের মা

রিফাত হত্যার প্রধান আসামি ক্রয়ফায়ারে নিহত নয়ন বন্ডের মা মিন্নি ও নয়নের সম্পর্ক নিয়ে সাংবাদিকদের সাথে খোলামেলা কথা বলেছেন ।

নয়নের সম্পর্কে তার মা বলেন, নয়ন যথেস্ট ভালো ছেলে ছিলো । তবে সে কিছুটা একরোখা, রাগি ও বদমেজাজের ছিলো । সে যেটা সিদ্ধান্ত নিতো সেটাই করতো ।

মিন্নি সম্পর্কে নয়নের মা বলেন, “মিন্নি একটা মহারাজ সাপ। তার পাল্লায় পরে অনেকগুলো পরিবার আজ ধংসের পথে।”

নয়নের সাথে মিন্নির নিয়মিত যোগাযোগ ছিলো জানিয়ে তিনি বলেন, নয়নের সাথে মিন্নি প্রায় প্রতিদিনই মোবাইলে কথা বলতো । এমনকি প্রায়ই বাড়িতে এসেও মিন্নি নয়নের সাথে দেখা করতো । মিন্নি কলেজে যাওয়ার কথা বলে নয়নের বাসায় আসতো আবার কলেজ ছুটি হওয়ার আগে চলে বাসা থেকে চলে যেতো ।

তিনি বলেন, “রিফাত হত্যার আগের দিনও মিন্নি আমাদের বাসায় এসেছিলো । নয়নের সাথে দেখা করে গেছে । এটা আমাদের প্রতিবেশিরাও দেখেছে”।

নয়নের সাথে মিন্নির বিয়ের কথা উল্লেখ করে তিনি বলেন, ” আমি জানতাম যে মিন্নি ভালো মেয়ে না । তাই আমি নয়নকে মিন্নির সাথে মিশতে সবসময় নিষেধ করতাম। কিন্তু আমার একটাই ব্যর্থতা যে, আমার ছেলে আমার কথা শুনতোনা । আমি মানা করার পরও মিন্নির সাথে মিশতো”।

ছবি – নয়ন বন্ডের সঙ্গে মিন্নি

তিনি অভিযোগ করে বলেন, মিন্নি যে ভালো মেয়ে না এটা এলাকার অনেকেই জানে । নয়ন মারা যাওয়ার পর মিন্নি বলেছে নয়ন নাকি জোর করে মিন্নিকে বিয়ে করেছে। জোর করে কাবিনে সই নিয়েছে। কিন্তু আমার প্রশ্ন হলো নয়ন যদি জোর করে ওকে বিয়ে করে থাকে তাহলে ও নয়নের সাথে দেখা করতে আসতো কেন ? কোন মেয়ে কি যে স্বামি তাকে জোর করে বিয়ে করেছে তার সাথে নিয়মিত দেখা করতে যায় ? আর নয়ন যদি ওকে জোর করে বিয়ে করে থাকে তাহলে পরে সেখান থেকে বেরিয়ে যাওয়ার পর নয়নকে ডিভোর্স দেয়নি কেন ? ডিভোর্স লেটার কই ?

নয়ন বন্ডের মা আরো বলেন, “আমার ছেলে তো মরেই গেছে। আমি আর কাকে বাচাতে মিথ্যা কথা বলবো ?”

এছাড়া নিহত রিফাতের বাবাও এর আগে মিন্নিকে গ্রেফতারের দাবি জানিয়েছেন।

উল্লেখ্য পুলিশ ইতিমধ্যেই মিন্নিকে গ্রেফতার করেছে এবং রিমান্ডেও নিয়েছে । পুলিশ দাবি করছে যে রিফাত হত্যার পরিকল্পনার সাথে মিন্নি জড়িত থাকার জোড়ালো সম্ভবনা রয়েছে । রিফাতের খুনি নয়ন ও তার বন্ধুবান্ধবদের সাথে মিন্নির নিয়মিত যোগাযোগ ছিলো । মিন্নির মোবাইলের কল লিস্ট চেক করে খুনিদের সাথে মিন্নির যোগাযোগের প্রমান পাওয়া গেছে । এছাড়া পুলিশের জিঙ্গাসাবাদের সময়ও মিন্নির কথায় তার জড়িত থাকার ইংগিত পাওয়া যাচ্ছে।

এছাড়া রিফাতকে হত্যার সময় ধারনকৃত ভিডিওতে মিন্নির কার্যকলাপ নিয়েও যথেস্ট সন্দেহ সৃষ্টি হয়েছে।

মতামত যোগ করুন

মতামত দিতে ক্লিক করুন

error: দুঃখিত, অনুলিপি করা যাবে না ! পরে এই কন্টেন্ট প্রয়োজন হলে আপনার সামাজিক অ্যাকাউন্টের সাথে ভাগ করুন।