নিবন্ধ

যোনি পরিষ্কার করার সঠিক নিয়ম

শরীরের বিভিন্ন অঙ্গের যত্ন ও রুপচর্চা নিয়ে আমরা খুব মনোযোগি কিন্তু যোনি পরিষ্কার করার সঠিক নিয়ম আমরা অনেকেই জানিনা । অথচ যোনি মেয়েদের শরীরের একটি খুবই গুরুত্বপূর্ন অংশ । সঠিকভাবে যোনি পরিষ্কার না করার ফলে শরীরের স্পর্শকাতর এই অংশটি খুব সহজেই রোগ-জীবানুতে আক্রান্ত হতে পারে। সামান্য ভূল বা অসচেতনতার জন্য বড় ক্ষতি হয়ে যেতে পারে। একটু সচেতন হলেই খুব সহজে যোনির স্বাস্থ্য ভালো রাখা যায়। তাই চলুন সহজে যোনি পরিষ্কার করার সঠিক নিয়ম জেনে নেই।

মেয়েদের যোনি পরিষ্কার করার সঠিক নিয়ম –

সাধারন পরিষ্কার পানি ব্যবহার: যোনি পরিষ্কার করার জন্য কোন বিশেষ প্রসাধনী বা সাবান বা অন্য কোন ক্যামিকেল যু্ক্ত কিছু ব্যবহার করার প্রয়োজন নেই । সাধারন পানি দিয়েই প্রতিদিন যোনি পরিষ্কার করুন অথবা মাঝে মধ্যে হালকা গরম পানি দিয়ে আলতো ভাবে হাত দিয়ে ঘষে ঘষে যোনি ও পায়ুপথ পরিষ্কার করুন।

সাবানের সঠিক ব্যবহার: যোনি পরিষ্কারের জন্য সাবান ব্যবহার করতে চাইলে কম ক্ষার যুক্ত সাবান অল্প পরিমানে ব্যবহার করুন। তবে বাজারে গিয়ে সব সময় খুজে খুজে কম ক্ষার যুক্ত সাবান কেনা সম্ভব নাও হতে পারে। সেক্ষেত্রে সাধারন সাবান ব্যবহার করলে খুবই অল্প পরিমানে ব্যবহার করুন এবং সাবান মেখে বেশি সময় অপেক্ষা না করে দ্রুত ধুয়ে ফেলুন । কারন বেশি ক্ষারযুক্ত সাবান ব্যবহারের ফলে যোনির কোমল ত্বকে ফাটল সৃষ্টি হতে পারে। একই উপায়ে পায়ুপথও পরিষ্কার করুন।

যোনির ভিতরে সাবান ব্যবহার: যোনিপথ বা পায়ুপথের ভিতরে কখনো সাবান বা শ্যাম্পু ব্যবহার করতে যাবেন না । কারন ভিতরে ক্যামিকেল প্রবেশ করলে ক্ষতি হতে পারে। ভিতরের অংশ প্রাকৃতিক ভাবেই নিজে নিজে পরিষ্কার হয়। সৃষ্টিকর্তা এটিকে সেভাবেই তৈরি করেছেন। তবে শরীরের বাকি অংশে সাবান ব্যবহার করতে পারেন।

স্যানিটারী প্যাডের ব্যবহার: মাসিকের সময় ভালো মানের স্যানিটারী প্যাড ব্যবহার করুন এবং এক প্যাড দীর্ঘক্ষন ব্যবহার করবেন না । চিকিৎসকেরা সাধারনত ৫ ঘন্টা পর পর প্যাড পরিবর্তনের পরামর্শ দিয়ে থাকেন।

যোনিকে শুষ্ক রাখা: শুধু নিয়মিত যোনি ধুলেই চলবেনা, পাশাপাশি এটিকে শুকনো রাখতে হবে । ভেজা বা স্যাতসেতে থাকলে যোনি বা পায়ুপথ ছত্রাক বা ইনফেকশন আক্রান্ত হতে পারে। গোসলের পর নরম তোয়ালে বা গামছা দিয়ে যোনি মুছে নিন। ঘামে ভিজে থাকলেও পানি দিয়ে ধুয়ে তারপর মুছে নিন।

যৌন মিলনের পর প্রসাব করা: যৌন মিলনের পর প্রসাব করা একটি ভালো অভ্যাস। যৌন মিলনের পর প্রসাব করলে তা যোনি পরিষ্কার করতে ভূমিকা রাখে । এটি ছেলেদের বেলায়ও প্রজোয্য। তাই যৌন মিলনের পর প্রসাব করে নিন এবং তারপর যোনি পানি দিয়ে ধুয়ে ফেলুন।

লোম পরিষ্কার: যোনি এবং পায়ুপথের চারপাশের লোমগুলো সবসময় ছেটে রাখুন, মাসে অন্তত একবার সেভ করুন বা পরিষ্কার করুন। তবে সেভ করার সময় খেয়াল রাখবেন যেন আঘাতপ্রাপ্ত না হন।

সঠিক পোষাক নির্বাচন: নরম কাপড় দিয়ে তৈরি এবং কিছুটা ঢিলেঢালা প্যান্টি ব্যবহার করুন। খুব আটসাট প্যান্টি ব্যবহার করবেননা । রাতে ঘুমানোর সময় ঢিলেঢালা পোষাক পরিধান করুন।

মতামত যোগ করুন

মতামত দিতে ক্লিক করুন

error: দুঃখিত, অনুলিপি করা যাবে না ! পরে এই কন্টেন্ট প্রয়োজন হলে আপনার সামাজিক অ্যাকাউন্টের সাথে ভাগ করুন।