নিবন্ধ

সেক্স বিফোর ম্যারেজ

সেক্স বিফোর ম্যারেজ

{লেখা শুরু করার আগে বলে রাখি আমার জিএফ টিএফ নাই এবং বউও নাই, হেডিং দেখে কেউ ভাববেন না আমি বিয়া কইরা ফেলাইছি, হ্যাডিং এর “আমার” ওয়ার্ডটাকে “নিজের” মনে করে পড়েন }

College-এ যাচ্ছি! কানে হেডফোন। ঘুম থেকে উঠেই গান শুনার অভাস আমার নাই। কোরআন শরীফ তেলওয়াত শুনছি । হঠাৎ সুরা নুর এর এক আয়াত আমার খুব মনে ধরল। যেহেতু আরবি কিছুটা বুঝি তাই ঐ আয়াতের প্রাথমিক একটা অর্থ মাথায় চলে এসেছিল। কিন্তু ভাবলাম, নিজে থেকে অর্থ করতে গিয়ে ভুল হলে গুনাহ আমারই হবে। ইন্টারনেটের এই যুগে তাফসিরের বিশাল বিশাল কিতাব (যদিও কিতাবগুলাও আমার কাছে নাই ) খুলে, আয়াত খুঁজে বের করে তাফসির দেখার মত কষ্ট করার ছেলে আমি নই।
সার্চ দিলাম।
তাফসিরের অনেক বিশাল বিশাল কিতাব দেখেছি, কিন্তু এগুলাকে এত সহজ করে দিয়েছে ইন্টারনেট, আলহামদুলিল্লাহ !

ﺍﻟﺰَّﺍﻧِﻲ ﻻَ ﻳَﻨْﻜِﺢُ ﺇِﻻَّ ﺯَﺍﻧِﻴَﺔً ﺃَﻭْ ﻣُﺸْﺮِﻛَﺔً ﻭَﺍﻟﺰَّﺍﻧِﻴَﺔُ ﻻَ ﻳَﻨْﻜِﺤُﻬَﺎ ﺇِﻻَّ ﺯَﺍﻥٍ ﺃَﻭْ ﻣُﺸْﺮِﻙٌ ۚ ﻭَﺣُﺮِّﻡَ ﺫَٰﻟِﻚَ ﻋَﻠَﻰ ﺍﻟْﻤُﺆْﻣِﻨِ
সুরা নুর – আয়াত ২
ব্যভিচারী পুরুষ কেবল ব্যভিচারিণী নারী অথবা মুশরিকা নারীকেই বিয়ে করে এবং ব্যভিচারিণীকে কেবল ব্যভিচারী অথবা মুশরিক পুরুষই বিয়ে করে এবং এদেরকে ( জিনাকারি পুরুষ অথবা মহিলা )মুমিনদের জন্যে হারাম করা হয়েছে।
Let no man guilty of adultery or fornication marry and but a woman similarly guilty, or an Unbeliever: nor let any but such a man or an Unbeliever marry such a woman: to the Believers such a thing is forbidden.
আজ আপনি নিজেকে যে ভাবেই গড়ে তুলবেন, আপনার ছেলে/মেয়ে সেভাবেই বড় হবে !
কিভাবে বলি ! আপনি ভাল থাকলে , আপনার বউ ভাল, আপনার বউ ভাল থাকলে আপনার সন্তানরাও ভাল থাকবে !
মূল কথা হচ্ছে নিজে ভাল থাকতে হবে !
সব মেয়েরাই চায় পাশের মসজিদের ইমামের মত ভাল একটা স্বামী, কিন্তু কোন মেয়েই ভাল ছেলের সাথে প্রেম করে না ! বা পারে না ! এরা প্রেম করে জুনায়েদ মার্কা ছেলে দেখে ! ঠিক বিপরীতে কোন ছেলেই চায় না তার বউ অন্য কোন ছেলের সাথে রাত কাটাক কিন্তু সে ঠিকি চাদিয়া মার্কা মেয়ের সাথে প্রেম করে, “করতে” ভালবাসে।
একটা মেয়ে ঘর থেকে বের হয় লিপস্টিক পরে !
সে যখন ড্রেসিং টেবিলের সামনে বসে লিপিস্টিকের ফার্স্ট লেয়ার দেয় তখন ভাবে “নাহ, খুব একটা বুঝা যায় না, দূর থেকে দেখাও যায় না।”
লিপ্সটিকের সেকেন্ড লেয়ার।
উহু! খুব খেয়াল করলে বুঝা যায়। আরেক্টা লেয়ার দেই।
থার্ড লেয়ার। ফোর্থ লেয়ার। এন্ড সো অন।
এভাবে ২০.৫ মিটার দূর থেকে দেখা যায়, বুঝা যায় পরিমান লেয়ারের পর রাস্তায় বের হলেন। ( 20.5 meter is the standard eye sight)
এরপর আমি যখন তাকাই তখন ভাবে “ছেলেটা তো লুইচ্ছা !”
না তাকালে ভাবে “হালার মাঝে কোন ফিলিংস নাই !!!”।

একবার কল্পনা করেন। একটা ছেলে জীবনেও কোন মেয়ের বডি-সেইপ দেখে নাই।
সুইট কন্ঠে, “হাই, হেল্লো” শুনে নাই।
সে যখন জীবনের প্রথম তার ওয়াইফের সেইপ দেখবে, সুইটি কন্ঠে “বাসায় খুব তাড়াতাড়ি চলে এসো, জান!” শুনবে তার ইমোশনটা আর প্রতিদিন সেইপের উপর সেইপ দেখা ছেলেটার কিংবা ঐশ্বরিয়ার কোমড়ের সাইজের মাপ জানা ছেলেটার অথবা “সানি”র বুকে মাপ জানা ছেলেটার ইমোশন কি এক হবে? স্ত্রীর প্রতি কার আকর্ষন, ভালবাসা বেশি হবে ? হয়তো অন্য অনেক মেয়ের দেহ দেখা ছেলেটা আফসোস করে বলেও বসতে পারে “I have seen better shape then her ( নিজের বউএর কথা বলছে )”।
প্রেগনেন্সির ৯ মাসের মাথায় আর বউকে দেখতে ভাল লাগে না। মাথার এক কোনে “আমার ফ্রেন্ডের বউ কতই না সুইট” টাইপ চিন্তা উকি ঝুকি মারে। তাই ঐ ফ্রেন্ডের বাসায় অনেক রাত করে ফিরেন।
কিন্তু এই তোমার জন্যই তাঁর বডির এই পরিবর্তন।
If you are the first time for your wife and your wife is the first time for you. you will never ever think of other girls.
সব শেষ কথা হল, “As you are, So your Wife”
আরেকটা আয়াতের কথা খুব আমার মনে পড়ছে !

ﺍﻟْﺨَﺒِﻴﺜَﺎﺕُ ﻟِﻠْﺨَﺒِﻴﺜِﻴﻦَ ﻭَﺍﻟْﺨَﺒِﻴﺜُﻮﻥَ ﻟِﻠْﺨَﺒِﻴﺜَﺎﺕِ ۖ ﻭَﺍﻟﻄَّﻴِّﺒَﺎﺕُ ﻟِﻠﻄَّﻴِّﺒِﻴﻦَ ﻭَﺍﻟﻄَّﻴِّﺒُﻮﻥَ ﻟِﻠﻄَّﻴِّﺒَﺎﺕِ ۚ ﺃُﻭﻟَٰﺌِﻚَ ﻣُﺒَﺮَّﺀُﻭﻥَ ﻣِﻤَّﺎ ﻳَﻘُﻮﻟُﻮﻥَ ۖ ﻟَﻬُﻢ ﻣَّﻐْﻔِﺮَﺓٌ ﻭَﺭِﺯْﻕٌ ﻛَﺮِﻳﻢٌ

sura nur ayat-26
“দুশ্চরিত্রা নারীকূল দুশ্চরিত্র পুরুষকুলের জন্যে এবং দুশ্চরিত্র পুরুষকুল দুশ্চরিত্রা নারীকুলের জন্যে। সচ্চরিত্রা নারীকুল সচ্চরিত্র পুরুষকুলের জন্যে এবং সচ্চরিত্র পুরুষকুল সচ্চরিত্রা নারীকুলের জন্যে। তাদের সম্পর্কে লোকে যা বলে, তার সাথে তারা সম্পর্কহীন। তাদের জন্যে আছে ক্ষমা ও সম্মানজনক জীবিকা।”
“Women impure are for men impure, and men impure for women impure and women of purity are for men of purity, and men of purity are for women of purity: these are not affected by what people say: for them there is forgiveness, and a provision honourable.”
{প্রেমের সম্পর্কের নামে দৈহিক সম্পর্কটা দুজনের মধ্যে হলেও, যদি তা কখনো জানাজানি হয় লোকে শুধু মেয়েটাকেই দোষ দেয়। কিন্তু বিয়ের আগে শারীরিক সম্পর্ক স্থাপনের জন্য মেয়েরাখুব কম ক্ষেত্রেই দায়ী থাকে। বয়ফ্রেন্ড না চাইলে কিংবা জোর না করলে কোন ভার্জিন মেয়ে হয়তো কখনো নিজ থেকে এই বিষয়ে রাজি হবে না(খুব, খুব, খুব কম ক্ষেত্রেই মেয়েরা আগে সেক্স করার আগ্রহ দেখায়) । আমাদের দেশের সমাজ এখনো এতো অধঃপতনে যায় নি।
আরেকটা বিষয় আমি আমার দেখা অভিজ্ঞতা থেকে বলতে পারি, চারিদিকে তাকালে দেখবেন বেশিরভাগ ছেলেই সিংগেল… আবার মেয়েদের জিজ্ঞাসা করলে বেশিরভাগই তারা এনগেজড। এর কারণ কি ? বেশিরভাগ ছেলেই যদি সিংগেল হয় তাহলে মেয়েগুলো এংগেজ হলো কিভাবে ? আসলে বেশিরভাগ ছেলেই ভাল। ভাল ছেলেরা এসবের সুযোগ খুঁজে না কিংবা নেয় না। কিন্তু খারাপ ছেলেরা সুযোগ খুঁজে বলে তারাই একসাথে কয়েকটা মেয়ের সাথে সম্পর্কে লিপ্ত হয়। ফলে একজন ছেলের কাছেই কয়েকটা মেয়ে এনগেজ থাকে । অনেক সময় একজন ছেলের কাছেই একাধিক মেয়ে সেক্সের শিকার হয় । হ্যান্ডসাম ড্যাসিং ছেলেদের যেমন চাহিদা বেশি, তাদের ক্ষেত্রে রিস্কও বেশি… অনুরুপভাবে অনেক মেয়ের ক্ষেত্রেও তাই । অনেকসময় একজীবনে একটা মেয়ে ৪-৫ জনের সাথেও প্রেম করে থাকে । টেস্টোস্টেরন হরমোনের প্রভাবে ছেলেদের এমনিতেই যৌন আকাঙ্ক্ষা বেশি থাকে। এছাড়া ছেলেদের লজ্জাও কম হয়।
তাই বেশিরভাগ ক্ষেত্রেই শারীরিক সম্পর্কের প্রস্তাব বা প্রেশার ছেলেদের কাছে থেকেই আসে। ছেলেদের উচিত নিজেকে নিয়ন্ত্রন করা। আর নিয়ন্ত্রন করতে না পারলে বিয়ের অপশন তো আছেই। মেয়েদের স্বভাবজাত ধৈর্য ছেলেদের তুলনায় বেশ কিছুটা বেশি। তাই তাদের উচিত ছেলেদের সব কিছু বুঝিয়ে বলা। সবচেয়ে রিস্কে থাকে সুন্দরী মেয়েরা, কারন সবার প্রাইমারী টার্গেট তাদের দিকেই থাকে। বেশিরভাগ সুন্দরী মেয়েদের বুদ্ধি হয় চেহারারচ ব্যস্তানুপাতিক, যদিও নিজেদের তারা চালাক ভাবে… অধিক সৌন্দর্য তাদের বুদ্ধির উপর পর্দা ফেলে দেয়। এই কারণে সুন্দরী মেয়েদেরই স্ক্যান্ডাল ভিডিও বেশি বের হয়।ধর্মীয় অনুশাসন সবারই মানা উচিত। সেক্স করতে রাজি না হওয়ায় কোন ছেলে যদি ছেড়ে চলে যেতে চায়, তাহলে বুঝতে হবে এই ছেলেটি কখনো তোমাকে ভালোবাসেনি। সে শুধু এতদিন সুযোগে ছিল। যদি সে তোমাকে ভালবাসে, বিয়ে পর্যন্ত সে অবশ্যই অপেক্ষা করবে। কাউকে কখনোই অন্ধভাবে বিশ্বাস করা উচিত না… সবার মাথায় এটা ঢুকে নেওয়া উচিত- I love you but I don’t trust you… সব সময় মনে রাখা উচিত, বিয়ে না হওয়া পর্যন্ত সব কিছুই অনিশ্চিত। জীবন তোমার, শরীরও তোমার… একে রক্ষা করার দায়িত্বও তোমার… তাই সিদ্ধান্তটাও সম্পূর্ণ তোমার নিজেরই হওয়া উচিত।} [ব্রেকেটের অংশটুকু ডাঃ তারাকি হুসেইন মেহদি ভাই থেকে নেওয়া ] শেষ কথা শেষ কথা হচ্ছে ! আমার ক্যারেকটারের প্রতিফলন আমার নেক্সট জেনেশনে দেখা দেবে ! সো ভাল বৌ পাওয়ার জন্য আহামরি কিচ্ছু করা লাগে না , নিজে ভাল থেকে বউ এর জন্য দুওয়া করতে থাকেন। এন্ড ভাইস ভার্সা !

ﺭﺑﻨﺎ ﻫﺐ ﻟﻨﺎ ﻣﻦ ﺃﺯﻭﺍﺟﻨﺎ ﻭﺫﺭﻳﺎﺗﻨﺎ ﻗﺮﺓ ﺃﻋﻴﻦ , ﻭﺍﺟﻌﻠﻨﺎ ﻟﻠﻤﺘﻘﻴﻦ ﺇﻣﺎﻣﺎﻭَﺍﻟَّﺬِﻳﻦَ ﻳَﻘُﻮﻟُﻮﻥَ ﺭَﺑَّﻨَﺎ ﻫَﺐْ ﻟَﻨَﺎ ﻣِﻦْ ﺃَﺯْﻭَﺍﺟِﻨَﺎ ﻭَﺫُﺭِّﻳَّﺎﺗِﻦَﺍ ﻗُﺮَّﺓَ ﺃَﻋْﻴُﻦٍ ﻭَﺍﺟْﻌَﻠْﻨَﺎ ﻟِﻠْﻤُﺘَّﻘِﻴﻦَ ﺇِﻣَﺎﻣًﺎ

sura furqan ayat 74
“এবং যারা বলে, হে আমাদের পালনকর্তা, আমাদের স্ত্রীদের পক্ষ থেকে এবং আমাদের সন্তানের পক্ষ থেকে আমাদের জন্যে চোখের শীতলতা দান কর এবং আমাদেরকে মুত্তাকীদের জন্যে আদর্শস্বরূপ কর।”
“And those who pray, “Our Lord! Grant unto us wives and offspring who will be the comfort of our eyes, and give us (the grace) to lead the righteous.”
কে আসবেন আমার জীবনে আমি জানিনা! কোরানে যে দুওয়া শিখিয়ে দেওয়া হয়েছে, তা তো চাইতেই পারি।
বিয়ে করার আগেই আল্লাহ দুওয়া শিখিয়ে দিচ্ছেন (আমার ক্ষেত্রে) আমার চাইতে অসুবিধে কোথায়?

ট্যাগ গুলো
error: দুঃখিত, অনুলিপি করা যাবে না ! পরে এই কন্টেন্ট প্রয়োজন হলে আপনার সামাজিক অ্যাকাউন্টের সাথে ভাগ করুন।