Home » টার্গেট অটো চালকরা, ৫ বছরে ছিনতাইকারীদের হাতে খুন হয়েছেন অন্তত ৩০০ অটো চালক
বাংলা সংবাদ

টার্গেট অটো চালকরা, ৫ বছরে ছিনতাইকারীদের হাতে খুন হয়েছেন অন্তত ৩০০ অটো চালক

একটি ব্যাটারি চালিত অটো, ইজিবাইক

দেশে চুরি, ডাকাতি ও ছিনতাইয়ের প্রবনতা আশংকাজনক হারে বৃদ্ধি পেয়েছে। সেই সাথে বৃদ্ধি পেয়েছে এসব কাজে জড়িত অপরাধীদের নৃশংসতা। সামান্য টাকার জন্য মানুষের অংগহানি এমনকি নৃশংস কায়দায় খুনের ঘটনা ঘটছে অহরহ।

গত ৫ বছরে ডাকাত ও ছিনতাইকারিদের হাতে দেশজুরে প্রান হারিয়েছেন অন্তত ৩০০ জন অটোচালক। ছিনতাইকারিদের হাত থেকে রেহাই পায়নি ১২ বছর বয়সি শিশু অটোচালক থেকে শুরু করে ৭০ বছর বয়সি বৃদ্ধ অটোচালকও।

সারা দেশেই এধরনের ঘটনা ঘটলেও ঢাকা বিভাগে এধরনের ঘটনা বেশি ঘটছে। মুন্সিগন্জ, নারায়নগন্জ, নরসিংদি ও গাজিপুরে এর পরিমান বেশি। কারন সারা দেশের সাথে এসব জেলার যোগাযোগ ব্যবস্থা ভালো হওয়ায় এসব এলাকা থেকে অটো ছিনতাই করলে তা দ্রুত অন্য এলাকায় সরিয়ে নেয়া যায় এবং বিক্রি করে দেয়া যায়।

চালককে খুন করে অটো ছিনতাইয়ের ঘটনাগুলোর মধ্যে ক্লু-লেস ৮৩ টি ঘটনা তদন্তের দায়িত্ব দেয়া হয়েছিলো পিবিআই-কে। তারা ইতিমধ্যে ৩৬ টি ঘটনার তদন্ত শেষ করে আদালতে প্রতিবেদন জমা দিয়েছে। এই ৩৬ টি ঘটনার মধ্যে ২৫ টি ঘটনার রহস্য উদঘাটন ও অপরাধি শনাক্ত করতে পেরেছে তারা। তবে বাকি ১১ টি ঘটনার কোন সুরাহা তারা করতে পারেনি। এছাড়া আরো ৪৭ টি মামলার তদন্ত এখনো চলছে।

তদন্তের দায়িত্বে থাকা কর্মকর্তারা বলেন, ডাকাতি ও ছিনতাইয়ের ঘটনা বৃদ্ধি পেয়েছে অনেক। আর ডাকাত ও ছিনতাইকারিদের একটি প্রধান টার্গেটে পরিনত হয়েছেন ইজিবাইক, ব্যাটারি চালিত অটোরিকশা/মিশুক চালকরা। সম্পূর্ন অটো বা এর বিভিন্ন যন্ত্রাংশ বা মূলত ব্যাটারির জন্যই চালকদের খুন করা হচ্ছে।

ঢাকার জুরাইন, দায়গন্জ ও ওয়ারির ১৫ জন ব্যবসায়ি গোয়েন্দাদের নজরদারিতে রয়েছেন। এসব ব্যবসায়িরা ছিনতাইকারি ও ডাকাতদের কাছ থেকে চোরাই অটো, অটোর পার্টস ও ব্যাটারি ক্রয় করে তা বিক্রি করেন। এসব ব্যবসায়িরদের জন্য অপরাধিরা আরো উৎসাহিত হচ্ছে বলে আইনশৃংখলা রক্ষাকারি বাহিনীর মত। তাদের মতে এসব ব্যবসায়িরা সব বুঝেও না বোঝার ভান করে।

গত বছরের সেপ্টেম্বরে একটি এনজিও থেকে পৌনে এক লাখ টাকা ঋন নিয়ে ও নিজের জমানো আরো কিছু টাকা মিলিয়ে একটি অটো কিনেন হাকিম আলি নামের এক যুবক। আশা ছিলো পরিবারের হাল ধরবেন। কিন্তু অটো কেনার এক সপ্তাহ পরেই হঠ্যাৎ একদিন নিখোজ হন তিনি। কোথাও তাকে খুজে পাওয়া যাচ্ছিলোনা। আরো এক সপ্তাহ পরে একটি জলাশয় থেকে তার অর্ধেক পঁচে যাওয়া লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। কে বা কারা, কি কারনে তাকে এমনভাবে হত্যা করলো তার কেউ বুঝতে পারলেন না। ঋন করে কেনা অটোটিও আর পাওয়া যায়নি। সংসারের অভাব মেটাতে চেয়েছিলেন কিন্তু অভাব মেটানো সম্ভব হয়নি তার আগেই পৃথীবি থেকে বিদায় নিতে হলো।

এর দুই মাস পরে একই জেলায় সুজন মিয়া নামের আরো এক অটো চালকের লাশ পাওয়া যায়। তিনিও ঋন নিয়ে অটো কিনেছিলেন। কিন্তু তার অটোটি পাওয়া যায়নি।

ঘটনা দুটি কিশোরগন্জের। পিবিআইকে ঘটনা দুটির তদন্ত করার দায়িত্ব দেয়া হয়। তারা অপরাধিদের সনাক্ত করে গ্রেপ্তার করতে সক্ষম হয়।

অপরাধিরা ধরা পড়ায় নিহত দুই অটো চালকের পরিবার খুশি হয়েছে কিন্তু তাদের প্রিয় মানুষগুলো আর কখনো ফিরে আসবেনা। পাশাপাশি ঋনের বোঝাও টানতে হচ্ছে।

সর্বশেষ গত সপ্তাহে ব্রাহ্মনবাড়িয়া জেলার তিতাস নদ থেকে ১৩ বছর বয়সি মারুফ হোসেন নামের এক অটো চালকের লাশ উদ্ধার করে পুলিশ। এর আগে অটো নিয়ে রাস্তায় বের হওয়ার পর ১ সপ্তাহ ধরে সে নিখোজ ছিলো। ১ সপ্তাহ পরে তার লাশ পাওয়া যায় কিন্তু অটোটি পাওয়া যায়নি।

পরিবারে আর্থিক অভাব অনটন বেশি থাকায় মাত্র ১৩ বছর বয়সেই অটো নিয়ে রাস্তায় নেমেছিলো সে। লক্ষ্য ছিলো পরিবারের অভাব দুর করবে। কিন্তু কিছু নরপশু তাকে হত্যা করে তার লাশটি নদী ফেলে দিয়ে তার অটোটি নিয়ে পালিয়ে যায়। এই ঘটনায়ও পুলিশ ইতিমধ্যেই অপরাধিদের শনাক্ত করেছে তবে তারা পালিয়ে থাকায় এখনও ধরা সম্ভব হয়নি। তাদেরকে দেশের যেখানেই পাওয়া যাবে সেখানেই আটক করা হবে।

অটো চালক হত্যার বেশিরভাগ ঘটনাগুলো একই রকমের। চালককে হত্যা করে অটো বিক্রি করে অর্থ আয় করাই এসব অপরাধিদের উদ্দেশ্য।

একটি চোরাই অটো বিক্রি করে গড়ে ৪০ হাজার থেকে ৭০ হাজার টাকা পায় অপরাধিরা। কারন চোরাই মালের দাম কম থাকে। আবার একেকটি হত্যাকান্ডে ২ থেকে ৫ জন জড়িত থাকে। ফলে একজনের ভাগে ১০ থেকে ১৫ হাজার টাকা পরে। এই সামান্য টাকার জন্যই এরা নির্দ্বিধায় মানুষ হত্যা করে চলছে।

পুলিশ বলছে এগুলো কোন বিচ্ছিন্ন ঘটনা নয় বরং এসবের সাথে সংঘবদ্ধ চক্র জড়িত।

BD MEDIA MATE AD WITH SCREENSHOT

আপনি এটিও পড়তে পারেন- ৫ হাজার টাকা দিলাম, যাকে ইচ্ছা তাকে খুন করো!
আপনি এটিও পড়তে পারেন- পরকীয়া প্রেমের বাধা দূর করতে নামাজরত অবস্থায় পিছন থেকে হাত-পা বেধে শাশুড়িকে হত্যা

আপনি এটিও পড়তে পারেন- ২৫ হাজার টাকায় খুনী ভাড়া করে খুন, ৩০ বছর পর ধরা পড়লো প্রকৃত আসামিরা

Add Comment

Click here to post a comment

এই সপ্তাহের সর্বাধিক দেখা ভিডিও:

বাংলাদেশীদের জন্য সেরা অ্যাপ

BD MEDIA MATE APP SCREENSHOT

আমাদের ওয়েবসাইটের জনপ্রিয় পোস্টগুলি:

BEST APP FOR US PEOPLE

US MEDIA MATE APP