নিবন্ধ

মনের আশা পুরনের দোয়া

মনের আশা পুরনের দোয়া

নবিজী সা: এর দেখানো পথে যেকোন বিপদে বা প্রয়োজনে কিভাবে মনের আশা পুরনের দোয়া করবেন আল্লাহর নিকট তার কিছু পদ্ধতি আমরা আপনাদের জন্য তুলে ধরেছি এখানে।

প্রথমেই আমরা আপনাদের জন্য দুইটি মনের আশা পুরনের দোয়া তুলে ধরেছি । এই দোয়াগুলোর মাধ্যমে আপনারা আল্লাহর নিকট কিছু চাইলে তা পাওয়ার সম্ভবনা বৃদ্ধি পায়।

মনের আশা পুরনের দোয়া (২টি )-

হাদিস থেকে জানা যায়, মহানবী হযরত মুহাম্মদ সা: বলেন – যখন তোমরা আল্লাহর নিকট কিছু চাও তখন আমার প্রতি দুরদ পাঠ কর।

এছাড়া হাদিস থেকে জানা যায়, এক ব্যাক্তি একবার নবীজি সা: এর কাছে জানতে চান, কোরআন শরীফের সর্বশ্রেষ্ঠ সুরা কোনটি ? তখন নবীজি বলেন কোরআন শরীফের সর্বশ্রেষ্ঠ সুরা হলো এখলাস ।
পবিত্র হয়ে তিনবার সুরা এখলাস পাঠ করে আল্লাহর নিকট ভালো কিছু চাইলে তিনি তা পুরন করেন ।

নিচে সুরা এখলাস আরবি এবং বাংলা উচ্চারন এবং বাংলা অর্থসহ তুলে ধরা হলো-

قُلۡ هُوَ اللّٰہُ اَحَدٌ

اَللّٰہُ الصَّمَدُ

لَمۡ یَلِدۡۙ وَ لَمۡ یُوۡلَدۡ

وَ لَمۡ یَکُنۡ لَّہٗ کُفُوًا اَحَد

বাংলা উচ্চারন:
ٌকু’ল হুয়া ল্লা-হু আহাদ ৷
আল্লা-হু স্‌সামাদ ৷
লাম ইয়ালিদ ওয়া লাম ইয়ুলাদ ৷
ওয়া লাম ইয়াকু ল-লাহু কুফুওয়ান আহাদ!

বাংলা অর্থ:
বলো, তিনিই আল্লাহ্‌, অদ্বিতীয়!
আল্লাহ অমুখাপেক্ষী ।
তিনি কাউকে জন্ম দেননি এবং কেউ তাকে জন্ম দেয়নি।
তাঁর সমকক্ষ আর কিছুই নেই!

এছাড়া আরেকটি সূত্র থেকে জানা যায় নিম্মোক্ত দোয়াটি পড়ে আল্লাহ তাআলার নিকট কিছু চাইলে তা পুরন হয় । দোয়াটি হলো-
اَللّـهُمَّ اهْدِني فيهِ لِصالِحِ الاَْعْمالِ، وَاقْضِ لي فيهِ الْحَوائِجَ وَالاْمالَ، يا مَنْ لا يَحْتاجُ اِلَى التَّفْسيرِ وَالسُّؤالِ، يا عالِماً بِما في صُدُورِ الْعالَمينَ، صَلِّ عَلى مُحَمَّد وَآلِهِ الطّاهِرينَ .

দোয়াটির বাংলা উচ্চারণ : আল্লাহুম্মাহ-দিনি ফিহি লি-সালিহিল আ’মাল; ওয়া আক্বদি লি ফিহিল হাওয়া-ইঝা ওয়াল আ’মাল; ইয়া মান লা ইয়াহতাঝু ইলাত তাফসিরি ওয়াস সাওয়াল; ইয়া আ’লিমান বিমা ফি সুদুরিল আ’লামিন; সাল্লি আলা মুহাম্মাদিন ওয়া আলিহিত ত্বাহিরিন।

অর্থ : হে আল্লাহ তাআলা! এই দিনে আপনি আমাকে সৎকাজের দিকে ধাবিত করুন। হে মহান সত্ত্বা আপনার কাছে প্রয়োজনের কথা বলার ও ব্যাখ্যা দেয়ার দরকার হয় না। আমার সব আশা-আকাঙ্খা ও প্রয়োজন আপনি পূরণ করে দিন। হে সমগ্র দুনিয়ার রহস্যজ্ঞানী ! হযরত মুহাম্মদ (সঃ) ও তাঁর পবিত্র বংশধরদের উপর আপনার রহমত নাযিল করুন।

মনের আশা পুরনের দোয়া করার সময় লক্ষনীয় কিছু দিক:

যদিও আমি ধর্ম বিশেষজ্ঞ নই । তবে ইসলাম ধর্মকে আমি ভালোবাসি এবং এই ভালোবাসা থেকেই কিছু জিনিস আমি বোঝার চেষ্টা করেছি। তার মধ্যে থেকে আমি কয়েকটি কথা এখানে বলতে চাই। যদিও এসব আমার ব্যক্তিগত মতামত। আপনি চাইতে পারেন যা ইচ্ছা তা, যত খুশি তত। তবে দেয়ার মালিক আল্লাহ । আল্লাহর পরিকল্পনাই চুড়ান্ত পরিকল্পনা ।

বেশ কয়েকটি জায়গায় আমি দেখেছি যে “অমুক দোয়া করলে সাথে সাথে দোয়া কবুল হবে” “ঐটা করলে ২৪ ঘন্টার ভিতর দোয়া কবুল হবে” সেটা করলে এক সপ্তাহে মনের ইচ্ছা পুরন হবে” ইত্যাদি । অনেক সময় হুজু্রাও বলে ফেলেন “এটা করলে ফল পাবেনই”। তবে কোন দোয়া করলে বা কোন আমল করলে ১ দিন বা ১ সপ্তাহের ভিতর মনের আশা পুরনের গ্যারান্টি কেউ দেয়নি । এগুলো সব ফালতু কথা । এসব রং চকচকে কথা বলে মানুষের ইমানকে নষ্ট করা হচ্ছে । ধরেন কেউ আপনাকে বললো এই সুরাটি ১০০ বার পড়লে বা এই কাজটি করলে ১ সপ্তাহের মধ্যে আপনার দোয়া কবুল হবে |আপনিও আশা নিয়ে খুব মনযোগ দিয়ে সেই আমলটি করলেন কিন্তু দেখলেন ১ সপ্তাহ পরে আপনার দোয়া কবুল হলোনা । তারপর দেখতে দেখতে ২/৩/৪ সপ্তাহ কেটে যাওয়ার পরও আপনার আশা পুরন হলোনা । তখন ঐ সুরাটির উপর থেকেই আপনার বিশ্বাস উঠে যাবে। আপনি হয়তো তখন ভাববেন যে, আল্লাহ আমার কথা শুনছেনই না বা এত বার বলার পরও আল্লাহ আমাকে কষ্ট দিচ্ছেন। এতে করে হয়তো ভবিষ্যৎতে অন্য কোন আমল করার ক্ষেত্রে আপনার বিশ্বাস কমে যাবে ।

তাই বলছি এসব ইমান নষ্ট করা কথা শুনে লাফাবেন না। আল্লাহ আপনার মনের আশা ১ দিনেও পুরন করতে পারে, ১ বছর পরেও করতে পারে, ১০ বছর পরেও করতে পারে বা পুরন নাও করতে পারে। আবার হয়তো আপনার এই দোয়ার বিনিময়ে এইটা না দিয়ে অন্য কিছুও দিতে পারে যা আপনি আশাও করেননি !

আপনার কাজ হলো শুধু ইমান ঠিক রেখে, হতাশ না হয়ে ধৈর্যের সাথে আমল করে যাওয়া। বাকিটা আল্লাহর ইচ্ছা।

মনের আশা পুরনের তদবির –

এখানে আপনাদের জন্য কয়েকটি মনের আশা পুরনের তদবির তুলে ধরছি।
* তাহাজ্জুদ নামাজ পড়ে আল্লাহর নিকট দোয়া করলে দোয়া কবুল হওয়ার সম্ভবনা বৃদ্ধি পায়। তাই তাহাজ্জুদ নামাজ পড়ে আল্লাহর নিকট দোয়া করতে পারেন।
* বেশি বেশি নফল নামাজ পড়েও আল্লাহর নিকট আপনার প্রয়োজন জানিয়ে দোয়া করতে পারেন।
* কোরআন শরীফ তেলাওয়াত করে আল্লাহর নিকট দোয়া করতে পারেন ।
* নফল রোজা রাখতে পারেন।
* যেকোন ভালো কাজে গরীর/অসহায় মানুষকে শক্তি বা অর্থ দিয়ে সাহায্য করতে পারেন।

আশা করি উপরের পদ্ধতিগুলো অনুসরন করে আল্লাহর কাছে মনের আশা পুরনের দোয়া করলে এবং উপরিউক্ত মনের আশা পুরনের তদবির সমূহ মেনে চললে আপনার দোয়া আল্লাহ কবুল করবেন।

ট্যাগ গুলো

মতামত যোগ করুন

মতামত দিতে ক্লিক করুন

error: দুঃখিত, অনুলিপি করা যাবে না ! পরে এই কন্টেন্ট প্রয়োজন হলে আপনার সামাজিক অ্যাকাউন্টের সাথে ভাগ করুন।