Home » বসে বসে বেতন পাচ্ছেন বলে স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার কথা মুখেও আনেননা শিক্ষকরা- অভিযোগ অভিভাবকদের
নিবন্ধ বাংলা সংবাদ

বসে বসে বেতন পাচ্ছেন বলে স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার কথা মুখেও আনেননা শিক্ষকরা- অভিযোগ অভিভাবকদের

বসে বসে বেতন পাচ্ছেন বলে স্কুল-কলেজ খুলে দেয়ার কথা মুখেও আনেননা শিক্ষকরা, এমন অভিযোগ অভিভাবকদের।

২০২০ সালের মার্চের শেষ দিক থেকে দেশে করোনার আগমনের পর থেকে শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান সেই যে বন্ধ হয়েছে তা আর খোলা হয়নি দীর্ঘ দেড় বছরেও।

তবে শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলেও এই সময়ের মাঝে শপিংমল, পিকনিক স্পট, সিনেমাহল সহ সবকিছুই খুলে দেয়া হয়েছিলো। শুধু খোলার চেষ্টা হয়নি শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান।

দীর্ঘদিন পড়ালেখা থেকে দুরে থাকার কারনে শিক্ষার্থীদের উপর এর বিরুপ প্রভাব পড়ছে। ফলে অনেকেই বলছেন শিক্ষা প্রতিষ্ঠান খুলে দেয়ার কথা। তবে শিক্ষকরা এবিষয়ে একদমই চুপ রয়েছেন।

এবিষয়ে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যম ফেসবুকে এক আলোচনায় অভিভাবকরা অভিযোগের আংগুল তোলেন শিক্ষকদের দিকে। আসওয়াদ হোসেন নামের একজন বলেন, “শিক্ষকরা এমপিও ভুক্ত হতে না পারলে আমরন অনশন করে কারন সেটাতে তাদের টাকা পয়সা জনিত স্বার্থ রয়েছে কিন্তু এত দীর্ঘ সময় শিক্ষা প্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকার পরও শিক্ষকরা শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান খুলে দিতে বলছেনা কারন তারা তাদের বেতন ঠিকই পাচ্ছে। একমাস এদের বেতন বন্ধ রাখলে এরাই আবার তখন রাস্তায় নেমে স্কুল খুলে দেয়ার জন্য আন্দোলন করবে।”

আলোচনায় অংশ নেয়া আরেক ফেসবুক ব্যবহারকারি মাহফুজুর রহমান বলেন, “শিক্ষকরা স্কুল কলেজে ক্লাস না করালেও বাড়িতে বসে ঠিকই কোচিং করাচ্ছে ও প্রাইভেট পড়াচ্ছে। আর সময়মতো বেতন ভাতাও নিচ্ছে। বসে বসে টাকা পেলে কে আর কাজ করতে চায়?”

শিক্ষামন্ত্রী দিপু মনি বলেছেন যে, স্কুল কলেজ খুলে দেয়ার ব্যাপারে সরকারের উপর কোন চাপ নেই।

স্কুল কলেজ খুলে দেয়ার ব্যাপারে শিক্ষকরা কি ভূমিকা রাখতে পারে এমন প্রশ্ন উঠে এলে আলোচনায় অংশ নেয়া অভিভাবকরা শিক্ষকদের ভূমিকার সমালোচনা করেন। তারা অভিযোগ করে বলেন যে, এত দীর্ঘ সময় শিক্ষাপ্রতিষ্ঠান বন্ধ থাকলে তার কি প্রভাব পরবে সেটা শিক্ষকরাই সবচেয়ে ভালো বুঝেন তবে এখন তারাই সব বুঝেও চুপ হয়ে আছেন নিজেদের স্বার্থে টান পড়েনি বলে।

Add Comment

Click here to post a comment

এই সপ্তাহের জনপ্রিয় পোস্ট:

বাংলাদেশীদের জন্য সেরা অ্যাপ

BD MEDIA MATE APP SCREENSHOT

আমাদের ওয়েবসাইটের জনপ্রিয় পোস্টগুলি:

BEST APP FOR US PEOPLE

US MEDIA MATE APP